ইন্টারনেট থেকে অনলাইনে টাকা আয়ের কয়েকটি সহজ উপায়

Mis Niki
প্রকাশকাল (৩১ আগস্ট ২০১৬)

f
g+
t

এই তথ্য প্রযুক্তির যুগে অনেকেই অনলাইনে আয় করে থাকে। অনলাইনে আয় করার অনেক উপায় আছে। এখানে অনলাইনে আয় করার কিছু উপায় উল্লেখ করা হল।

ইন্টারনেট থেকে অনলাইনে টাকা আয়ের কয়েকটি সহজ উপায়

ছবি Mis Niki

অনলাইনে লেখালেখি হতে পারে আপনার আয়ের সর্বোত্তম উপায়

ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং এর কাজ : বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে পৃথিবীর সব থেকে জনপ্রিয় অনলাইনে আয়ের মাধ্যম। অধিকাংশ লোকই ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করে থাকে। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য কিছু যোগ্যতার প্রয়োজন হয়।

অনভিজ্ঞ লোকও ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারে। সেক্ষেত্রে বেশি আয় করা যায় না। সারা পৃথিবীতে অনেক ফ্রিল্যান্সিং সাইট আছে। তবে সব সাইটই বিশ্বাসযোগ্য নয়৷ বিখ্যাত এবং বিশ্বাসযোগ্য ফ্রিল্যান্সিং সাইট হলঃ

www.freelancer.com
www.upwork.com
www.elance.com

ইমেইল মার্কেটিং করে আয় : অনলাইনে আয় করার একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হল ইমেইল মার্কেটিং। ইমেইল মার্কেটিং করে আপনি প্রচুর টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার পন্য অথবা সেবা গ্রাহকদের নিকট পৌছে দিয়ে আয় করতে পারেন৷ তাছাড়া অন্য কারোর প্রচারনার কাজ করেও আয় করতে পারেন৷।

ইমেইল পাঠাতে কোন খরচ হয় না। আপনি গুগলে সার্চ দিয়ে যেকোন দেশের যত খুশি তত ইমেইল সংগ্রহ করতে পারেন। তারপর সেগুলোকে এক্সএমএল ফাইলে রুপান্তর করে মেইল এড্রেসে আপলোড করে একসাথে কয়েক হাজার মেইল পাঠাতে পারবেন। বিখ্যাত কিছু ইমেইল সেবা দানকারী সাইটের নামঃ

www.mailchimp.com
www.yahoo.com
www.mail.google.com
www.hotmail.com

ফেসবুক মার্কেটিং করে আয় : ফেসবুক হচ্ছে পৃথিবীর একমাত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেখানে মানুষ অনেক সময় কাটায়। সেজন্য যেকোন ধরনের পন্য এবং সেবা মানুষের কাছে পৌছে দেয়ার সহজ মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক।

এখানে আপনি বিনামূল্যে মার্কেটিং করে আয় করতে পারেন৷ তাছাড়া ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়েও অধিক পন্য বা সেবা বিক্রয় করা যায়৷ তাছাড়া অন্য করো পন্য বা সেবার প্রচারের কাজ করেও আয় করা যায়।

ই-বুক পাবলিশিং: বিভিন্ন পন্য এবং সেবার প্রচারের জন্য ই-বুক পাবলিশিং করা হয়ে থাকে। আপনিও ই বুক পাবলিশিং এর মাধ্যমে অন্য কোম্পনির পন্য অথবা যেকোন কিছু সম্পর্কে ই বুক পাবলিশ করে আয় করতে পারেন। অথবা আপনি কোন ই-বুক পাবলিশ করবেন? সেখানে বিজ্ঞাপন প্রদর্শণ করাতে পারেন যা থেকে অনেক আয় করা যায়।

ব্লগিং করে আয়: ব্লগিং মানে হল লেখালিখি করা৷ আপনি ব্লগিং করে প্রতি মাসে অনেক টাকা আয় করতে পারেন৷ তাই আপনার লিখা প্রকাশ করার জন্য একটি ব্লগ সাইট দরকার।

আপনি ব্লগে লিখা প্রকাশ করার পর সেখানে বিজ্ঞাপন প্রদর্শণ করাতে হবে যা থেকে আপনার আয় আসবে৷ এজন্য চিন্তা করার কোন কারন নেই। আপনি গুগল এডসেন্স থেকে বিজ্ঞাপন প্রদর্শণ করাতে পারেন৷

অথবা অন্য কোন এড নেটওয়ার্ক প্রদর্শণ করাতে পারেন। এডসেন্স থেকে বিজ্ঞাপন প্রদর্শণ করাতে হলে অবশ্যই অন্যের লিখা নকল করা যাবে না। কারন এডসেন্স নকল থাকলে তাদের বিজ্ঞাপন আপনার ব্লগে প্রদর্শণ করবে না। জনপ্রিয় বিনামূল্যে ব্লগিং সাইট হলঃ

www.blogspot.com
www.wordpress.com

ইউটিউব ভিডিও মার্কেটিং: ভিডিও মার্কেটিং করে ভাল আয় করা যায়। আপনার ভিডিওর প্রত্যেকটা দর্শক টাকায় পরিনত হবে। আপনি ইউটিউব এবং ডেইলিমোশনে ভিডিও আপলোড করার পর ভিডিওর দর্শক অনুযায়ী আয় দেয়া হবে৷ শর্ত হলো নিজস্ব ভিডিও হতে হবে। ভিডিও মার্কেটিং করে অনলাইনে আয় করা খুবই সহজ৷ জনপ্রিয় ভিডিও পাবলিশিং সাইট হলোঃ

www.youtube.com
www.dailymotion.com

লেখালেখি করে আয়: ভিডিও পাবলিশিং এর মত লেখালেখি করেও অনলাইনে প্রচুর আয় করা যায়৷ আপনি বিভিন্ন উপকারি এবং শিক্ষনীয় লিখা প্রকাশ করে আয় করতে পারেন। আপনার প্রকাশিত লিখা থেকে সারা জীবন আয় করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে কোন ফি দিতে হবে না। আপনার প্রকাশিত লিখার পাঠকের উপর ভিত্তি করেই আপনাকে আয় দেয়া হবে৷ বিশ্বস্ত লিখলিখি করে আয় করার সাইট হলোঃ

www.learnarticle.com

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় : অনলাইনে পন্য কেনাবেচা করার জন্য এফিলিয়েট মার্কেটিং একটা কার্যকরি পদ্ধতি৷ পৃথিবীর বিখ্যাত ই কমার্স সাইটগুলোই এফিলিয়েট মার্কেটিং পদ্ধতি ব্যাবহার করে থাকে। আপনি এসব এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যোগ দিয়ে আয় করতে পারেন।

এফিলিয়েট হল বিক্রেতার পন্য বিক্রি করে কমিশন পাওয়া। আপনাকে একটি এফিলিয়েট আইডি দেওয়া হবে। আপনি আপনার আইডি থেকে পন্যের লিংক তৈরি করে ক্রেতার কাছে পৌছে দিবেন৷ আপনার আইডি থেকে যত পন্য বিক্রি হবে তা থেকে নির্দিষ্ট হারে কমিশন পাবেন। সেরা এফিলিয়েট সাইট হলঃ

www.amazon.com
www.ebay.com


অনলাইন সার্ভে করে আয় : সার্ভে থেকে বর্তমানে অনেক বেশি আয় করা যায়। বিভিন্ন সার্ভে সাইট আছে যেখান থেকে আপনি প্রতিদিন ভাল একটা আয় পেতে পারেন। সার্ভে সাইটে যে সকল সার্ভে আপনাকে দেওয়া হবে সেগুলো সম্পন্ন করলেই আপনার একাউন্টে ডলার জমা হতে থাকবে। তবে বাংলাদেশ থেকে সার্ভের কাজ করা কষ্টকর।

মাইক্রো উপার্জন: অনলাইনে কোন প্রকার অভিজ্ঞতা ছাড়াই মাইক্রো কাজ করে আয় করতে পারেন। পৃথিবীতে অনেক মাইক্রো জব সাইট আছে যা টাকা পরিশোধ করে না। কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মাইক্রো সাইট যারা টাকা পরিশোধ করে৷ তাছাড়া yourmicrojob একমাত্র মাইক্রো সাইট যারা বিকাশ সাপোর্ট করে।

www.microworkers.com
www.rapidworkers.com
www.yourmicrojob.com


কাউন্সেলিং: কাউন্সেলিং হল এক ধরনের সেবামূলক কাজ যা বর্তমানে ঘরে বসে অনলাইনে করা যায়। তৃতীয় পক্ষের কোন সমস্যা সমাধান করে দেওয়াই হল কাউন্সেলিং। মনে করেন কেউ ভার্সিটি ভর্তির আবেদন করতে পারছে না। আপনি কাজটা করে দিতে পারেন।

অথবা একজন পাসপোর্ট এর আবেদন করতে পারছে না আপনি কাজটা করে দিতে পারেন। এরকম আরো হাজারটা সমস্যা থাকতে পারে যা সমাধান করে আপনি আয় করতে পারেন৷। এজন্য আপনাকে অবশ্যই একটি ওয়েবসাইট অথবা ফেসবুক পেজ দিয়ে প্রচারনা চালাতে হবে।

ই কমার্স বিজনেস: বর্তমানে অনলাইনে কেনাকাটার জন্য বহুল ব্যবহৃত মাধ্যম হচ্ছে ই কমার্স। আপনি সহজেই অল্প কিছু টাকা খরচ করে একটি ই কমার্স শুরু করতে পারেন। ই কমার্স এর জন্য আপনার একটি ওয়েবসাইট প্রয়োজন হবে যেখানে পন্য বা সেবা প্রদর্শণ করবেন।

এরপর ছড়িয়ে দিন মানুষের মাঝে। এ ব্যবসায়ে মানুষ বেশি ঝুকে কারন এখানে পূজি এবং ঝুকি কম৷ তাছাড়া খুব সহজেই প্রসার ঘটে। আপনিও খুব সহজেই একটা ই কমার্স ব্যবসায় শুরু করতে পারেন।

Mis Niki-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

* অনলাইনে লেখালেখি হতে পারে আপনার আয়ের সর্বোত্তম উপায়

* সিলেট বিভাগের প্রত্যেক জেলার উপজেলা এবং পৌরসভা (মানচিত্র সহ)

* রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন জেলা , উপজেলা ও পৌরসভা (ম্যাপ সহ)

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আরও প্রবন্ধ পড়ুন



বিজ্ঞাপন



© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com