মন ভালো রাখার কিছু সহজ উপায় এবং উপকারী টিপস

রিমি আক্তার
প্রকাশকাল (১১ ডিসেম্বর ২০১৬)

f
g+
t

সৌন্দর্য বৃদ্ধি এবং সৌন্দর্য বজায় রাখার উপায়

মন মানুষের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। এটি মানুষের প্রত্যেকটা বিষয়ের সাথে ওতপ্রোতভাবে জরিত। যেমন মন ভালো থাকলে সবকিছু ভালো লাগে অপরদিকে মন খারাপ থাকলে সবকিছু খারাপ লাগে। আপনার মন খারাপ থাকলে দেখবেন শরীর ভালো লাগছে না এবং কোন কাজ করতেও ইচ্ছে করছে না। অর্থাৎ সবকিছুই যেন কেমন অর্থহীন মনে হচ্ছে। আর তাই আমাদের উচিত সবসময় মন ভালো রাখার চেষ্টা করা। কিভাবে মন ভালো রাখা যায় তার কিছু বিষয় এখানে আলোচনা করা হল। আশা করি এই বিষয় মেনে চললে মন অনেকটাই ভালো থাকবে।

মন ভালো রাখার কিছু সহজ উপায় এবং উপকারী টিপস

ছবি রিমি আক্তার

প্রার্থনা করা:

প্রার্থনা একটি অতি প্রয়োজনীয় শব্দ। প্রার্থনা শব্দটি শুনলেই মনে হয় এটি একটি ধর্মীয় কাজ। আমরা প্রার্থনা নামাজ আদায় করাকেই বুঝে থাকি। মন ভালো রাখার জন্য মনোবিজ্ঞানে একটি বিষয় খুবই পরিচিত সেটা হল মেডিটেশন।

মেডিটেশন মানে হল মনের প্রশান্তির জন্য এক ধ্যানে কোন কিছু চিন্তা করা তথা প্রচলিত চিন্তা থেকে নিজেকে দুরে সরিয়ে ফেলা। ঠিক একই ভাবে প্রার্থনার মাধ্যমে মানুষ দুনিয়ার সব ঝামেলা ভুলে আল্লাহর সাথে সম্পর্ক সৃষ্টি করে যা আপনাকে মানসিক প্রশান্তি দিতে পারে।

তাছাড়া মেডিটেশন মন ভাল হওয়ার কোন স্থায়ী কোন মাধ্যম নয়। এর মাধ্যমে সাময়িক প্রশান্তি পাওয়া যায়। কিন্তু প্রার্থনার মাধ্যমে আপনি যেকোনো ধরনের মানুষিক সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

কেননা প্রার্থনা কিংবা নামাজ আমাদের এমন কিছু ব্যাবহার শেখায় যা আমাদের মন খারাপ হওয়ার মূল কারনটাকে ধ্বংস করে দেয়। সেই জন্য মন ভাল রাখার জন্য অবশ্যই নিয়মিত নামাজ আদায় করতে হবে।

ইতিবাচক চিন্তা করা

আমাদের চারপাশে অনেক ঘটনা দুর্ঘটনা ঘটছে। আমরা স্বভাবতই এই সকল বিষয়ে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া করি। তবে আমাদের সকল বিষয়ে নেতিবাচক চিন্তা করা উচিত নয়।

কারন নেতিবাচক চিন্তা আপনার জীবনে অতিরিক্ত চিন্তা নিয়ে আসবে যা মনে সবসময় একটা বিষণ্ণ ভাব নিয়ে আসবে। আপনি যখন বিভিন্ন বিষয়ে ইতিবাচক চিন্তা করবেন তখন আপনার মনে কোন জটিলটা থাকবে না।

ইতিবাচক চিন্তা আপনাকে মানুষের কাজকে ভালভাবে নিতে সাহায্য করবে। আপনি যখন মানুষের কাজকে ইতিবাচকভাবে মূল্যায়ন করবেন তখন সবাই আপনার সাথে ভাল ব্যাবহার করবে যা আপনার মন ভাল করে দিবে।

তাছাড়া আপনি যখন কারো সমালোচনা করবেন তখন আপনার শত্রু তৈরি হবে যা আপনার জীবন থেকে সুখ কেড়ে নেবে। সেজন্য সবসময় ইতিবাচক চিন্তা করাই উত্তম। তবে কিছু কিছু সময় সত্য বলার মাঝেই আপনি সুখ খুজে পাবেন যদিও সেটা নেতিবাচিক হয়।

বেশি বেশি শাকসবজি খাওয়া

মন ভাল না থাকার পেছনে যে শুধুমাত্র মানসিক কারন রয়েছে তা কিন্তু নয়। দেহ এবং মনের মধ্যে গভীর সম্পর্ক বিদ্ধমান। দেহের বিভিন্ন ধরনের জৈবিক ক্রিয়ার উপর মনের ভাল থাকা না থাকা অনেকটাই নির্ভর করে।

আপনার শরীর যদি ভাল না থাকে তাহলে মনও ভাল থাকে না। আর শরীর ভাল থাকার জন্য অবশ্যই পর্যাপ্ত খাদ্য উপাদান যথা আমিষ, শর্করা, ভিটামিন, পানি, আঁশযুক্ত খাবার এবং খনিজ লবন থাকা জরুরী।

শাক সবজিতে পর্যাপ্ত পরিমান খাদ্য উপাদান থাকে যা শরীরের স্বাভাবিক কাজ ঘটিয়ে মন ভাল রাখতে সাহায্য করে। তাছাড়া পর্যাপ্ত শাকসবজি না খেলে শরীর এবং মন ফ্যাকাসে লাগে। সেজন্য মন ভাল রাখতে হলে বেশি বেশি শাকসবজি খেতে হবে।

কায়িক পরিশ্রম অথবা ব্যয়াম করা

শাকসবজির সাথে সাথে শরীর ভাল রাখার জন্য শারীরিক পরিশ্রম করাও অত্যন্ত জরুরী। কারন পর্যাপ্ত ব্যায়াম কিংবা শারীরিক পরিশ্রমের ফলে শরীরের মাংস পেশির সংকোচন এবং প্রসারণ হয় যার ফলে শরীরে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়।

এভাবে ব্রেইনে পর্যাপ্ত রক্ত সঞ্চালন হলে মস্তিষ্ক ভাল থাকে এবং মনও প্রফুল্ল থাকে। তাছাড়া ব্যায়ামের মাধ্যমে চিন্তা দুর হয়, মন ভাল রাখার জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়া যায়। শারীরিক পরিশ্রম আপনার মন খারাপ হয় এই রকম বিভিন্ন বিষয় থেকে বিরত থাকতে সাহায্য করবে।

বিনোদনের ব্যবস্থা করা

মন ভাল রাখার জন্য বিনোদন অত্যাবশ্যক। কেননা বিনোদন মনের আনন্দের যোগান দেয়। আমরা প্রতিনিয়ত বাধ্য হয়ে অনেক কাজ করি যা মনের উপর নেতিবাচক প্রভাব বিস্তার করে। কিন্তু যখন বিভিন্ন বিনোদনের মধ্যে থাকি তখন কাজের একগেয়েমি কেটে যায়।

বিভিন্ন ধরনের বিনোদন আছে যেমন গান শুনা, খেলাধূলা করা, ঘুরতে যাওয়া, সিনেমা দেখা, বই পড়া, গামেস খেলা ইত্যাদি। এই সকল বিনোদন যাতে মূল কাজ থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

রিমি আক্তার-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

খুলনা বিভাগের সকল জেলার জনপ্রিয় ও বিখ্যাত দর্শনীয় স্থান সমূহ

জেনে নিন রাজশাহী বিভাগের সব জেলার জনপ্রিয় দর্শনীয় স্থান সমূহ

কোন প্রকার অভিজ্ঞতা ছাড়া অনলাইন আয়ের জনপ্রিয় মাধ্যম


আরও প্রবন্ধ পড়ুন






© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com