অনলাইনে লেখালেখি হতে পারে আপনার আয়ের সর্বোত্তম উপায়

Mis Niki
প্রকাশকাল (১৩ ডিসেম্বর ২০১৬)

f
g+
t

বর্তমানে অনলাইনে আয়ের বিভিন্ন মাধ্যম আছে। আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ধরনের প্রতারনামুলক কাজের মাধ্যমে ঠকছি কিংবা সারা মাস কাজ করে টাকা উত্তোলন করতে পারছি না। এর কারন হচ্ছে আমরা কোন ধারনা না নিয়েই কাজ শুরু করে দেই। একবারও ভাবিনা আমি যার সাইটে কাজ করব সে ইনকাম দিবে কোথা থেকে। লেখালেখি এমন একটা কাজ যা থেকে কোন প্রকার সংশয় ছাড়া ভাল একটা আয় করা যায়। তাছাড়া লেখালেখি থেকে আয় করার বিভিন্ন মাধ্যম আছে। বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে বিভিন্ন ভাবে তথ্য থেকে আয় করা যায়। সুতরাং লেখালেখি করে নিজের ব্লগ কিংবা অন্যের সাইট থেকেও আয় করা যায়। তাছাড়া নিয়মিত লেখালেখি করলে অভিজ্ঞতা বাড়ে যা আপনাকে একজন অভিজ্ঞ লেখকে পরিণত করবে। তবে লেখালেখি করে আয় করার জন্য অবশ্যই কিছু জিনিস মাথায় রাখা দরকার, তা না হলে লেখালেখি করে সাফল্য অর্জন করা সম্ভব নয়।

অনলাইনে লেখালেখি হতে পারে আপনার আয়ের সর্বোত্তম উপায়

ছবি Mis Niki

ইন্টারনেট থেকে অনলাইনে টাকা আয়ের কয়েকটি সহজ উপায়

তথ্য জানুন: লেখালেখি করার জন্য তথ্য জানার বিকল্প নেই। আপনার মধ্যে যত বেশি তথ্য থাকবে আপনি তত বেশি সুন্দর, আকর্ষণীয় এবং তথ্যবহুল লিখা প্রকাশ করতে পারবেন এবং পাঠক অধিক পছন্দ করবে। লেখালেখির জন্যে তথ্য জানতে গিয়ে বাস্তব জিবনেও এর প্রয়োগ করতে পারবেন।

লেখালেখির মাধ্যমে আপনার চিন্তা ভাবনা অন্যের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারবেন যাতে মানসিক প্রশান্তি পাওয়া যায়। তবে লেখালেখির জন্য সংগৃহীত তথ্য যাতে বিশ্বাসযোগ্য হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। নির্ভুল এবং উপকারি তথ্যের উৎস সম্পর্কে জানতে হবে।

আপনি ইন্টারনেট, টেলিভিশন, সংবাদপত্র, রেডিও, বিভিন্ন বই এবং বাস্তব জীবন থেকে সঠিক তথ্য জানতে পারেন। সেজন্য বেশি বেশি সংবাদপত্র পড়া, টেলিভিশন দেখা, রেডিও শুনা এবং ইন্টারনেটে ব্রাউজিং করার অভ্যাস করতে হবে। তাছাড়া আপনার চারপাশের বিভিন্ন ঘটনার দিকে নজর রাখতে হবে। সর্বোপরি জানার আগ্রহ বৃদ্ধি করতে হবে।

কপি পেস্ট বর্জন করুন: কপি পেস্ট মানে তো বোঝেনই নকল, বাঙ্গালীর চিরাচরিত অভ্যাস। কপি পেস্ট আমেদের সৃষ্টিশীলতার গুণ নষ্ট করে দেয়। আপনার মধ্যে যখন এই রোগ জন্মাবে তখন আপনার লিখালিখির বারোটা বাজিয়েই ছাড়বে। সেই জন্য সবসময় চেষ্টা করবেন কপি পেস্ট মুক্ত লিখা প্রকাশ করতে।

কপি পেস্ট মুক্ত লেখা আপনার লিখার মান বৃদ্ধি করবে পাশাপাশি আপনার ভেতরের সৃজনশীলতার বিকাশে সাহায্য করবে। কপি পেস্ট করা লিখা আপনার লিখাকে অসার করে দেবে। এই ধরনের লিখা পাঠকদের মনে বিরক্তির ভাব সৃষ্টি করা ছাড়া আর কিছুই করতে পারবে না। সে জন্য অবশ্যই কপি পেস্ট মুক্ত লিখা পাবলিশ করে সুন্দর এবং সর্বোত্তম পেশা তৈরি করার চেষ্টা করা উচিত, সফল হবেনই।

ব্যাকরণের দিকে নজর দিন: লেখালেখির ক্ষেত্রে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল ব্যাকরণ। আমরা প্রচলিত কথ্য রীতিতে যেভাবে কথা বলি তা দিয়ে কখনোই একজন ভাল লেখক হওয়া সম্ভব নয়। লেখক হিসেবে অবশ্যই আপনাকে ব্যাকরণগত ভুল যাতে না হয় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। কারন ব্যাকরণগত ভুল লেখার মান নষ্ট করে দেয়।

ব্যাকরণগত ভুলের জন্য অনেক সময় লিখার অর্থ বিকৃত হয়ে যায় যা কখনোই কাম্য নয়। ব্যাকরণগত ভুল সংশোধন করার জন্য প্রচুর পরিমানে পত্রিকা পড়তে হবে। পত্রিকা পড়ার সময় অবশ্যই লিখার ধরণ এবং ব্যাকরণগত বিষয় গুলোর দিকে বেশি বেশি নজর দিতে হবে। আশা করি এভাবে খুব সহজেই আপনার ব্যাকরণগত ভুল থাকলে তা সংশোধন করে ফেলতে পারবেন।

লিখার অনুশীলন করুন: কোন কাজ যতই শিখেন না কেন যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনি অনুশিলন করবেন ততক্ষণ আপনার লিখার মান ভাল হবে না। কথায় আছে না গাইতে গাইতে গাইয়ান। সেজন্য অনুশীলন করা খুবই জরুরি। আপনার মধ্যে পর্যাপ্ত তথ্য নেই কিংবা ব্যাকরণগত ভুল অনেক বেশি তাতেও কোন সমস্যা নেই, শুরু করে দিন সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে।

আপনি যখন লিখতে গিয়ে তথ্যের অভাবে আটকে যাবেন তখন এমনিতেই শেখার প্রতি আগ্রহ জাগবে। ব্যাকরণগত ভুলও সমাধান হয়ে যাবে। তবে অনুশীলন করার সময় অবশ্যই কপি পেস্ট এড়িয়ে যাবেন তা না হলে এই অভ্যাস ত্যাগ করা কষ্টকর হয়ে যাবে। সতরাং বেশি বেশি অনুশীলন করতে থাকেন লিখার গুণগত মান বেড়ে যাবে।

এবার শুরু করুন: আপনি যখন লিখালিখিতে পর্যাপ্ত দক্ষতা অর্জন করবেন তখন দেরি না করে শুরু করে দিন। কারন দেরি করলে কাজের প্রতি আগ্রহ কমে যায়। আপনি আপনার নিজের ব্লগে লিখা পাবলিশ করতে পারেন কিংবা যে সকল সাইটে লিখালিখি করে আয় করা যায় সেখানেও লিখা পাবলিশ করতে পারেন।

নিজের ব্লগে লিখা পাবলিশ করলে আপনাকে আয় করার জন্য অনেকটা সময় অপেক্ষা করতে হবে। যদি আপনার তাৎক্ষনিক আয় করা দরকার হয় তাহলে অন্য কোন সাইটে লিখা পাবলিশ করতে পারেন। এটা নির্ভর করবে আপনার নিজস্ব চিন্তা এবং অবস্থার উপর। পরিশেষে এটুকু বলা যায় বর্তমানে অনলাইন আয়ের ক্ষেত্রে লিখালিখি অবশ্যই একটা বড় জায়গা দখল করে নিয়েছে নিঃসন্দেহে।

Mis Niki-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

* ঢাকা বিভাগের সবকটি জেলা , উপজেলা এবং পৌরসভা (মানচিত্র সহ)

* ময়মনসিংহ বিভাগের সকল জেলার , উপজেলার ও পৌরসভা (মানচিত্র সহ)

* ইন্টারনেট থেকে অনলাইনে টাকা আয়ের কয়েকটি সহজ উপায়

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আরও প্রবন্ধ পড়ুন



বিজ্ঞাপন



© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com