হুমায়ূন আহমেদ এর জীবনী, কবিতা, নাটক, গল্প এবং উপন্যাস সমগ্র

আসমা আক্তার শান্তা
প্রকাশকাল (৩০ এপ্রিল ২০১৭)

f
g+
t

বাঙ্গালি জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিকদের মধ্যে হুমায়ূন আহমেদ অন্যতম। তিনি একাধারে ঔপন্যাসিক, ছোট গল্পকার,নাট্যকার এবং গীতিকার। এছাড়াও হুমায়ূন আহমেদ নাটক ও চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবেও খ্যাত। হুমায়ূন আহমেদের প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা তিন শতাধিক। তার বেশ কিছু গ্রন্থ পৃথিবীর নানা ভাষায় অনূদিত হয়েছে। সত্তর দশকের শেষভাগে থেকে মৃত্যু পর্যন্ত বাংলায় প্রেমের গল্প, কবিতা, প্রেমের উপন্যাস লিখে জাতির অন্তরে জায়গা করে নিয়েছেন হুমায়ুন আহমেদ।

হুমায়ূন আহমেদ এর জীবনী, কবিতা, নাটক, গল্প এবং উপন্যাস সমগ্র

ছবি আসমা আক্তার শান্তা

সুকুমার রায় এর জীবনী, গল্প, কবিতা এবং রচনা সমগ্র

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনবদ্য সব কবিতা এবং রচনাবলী

হুমায়ূন আহমেদের সৃষ্ট হিমু , মিসির আলি , শুভ্র চরিত্রগুলো বাংলাদেশের যুবক শ্রেণিকে আকৃষ্ট করেছে। হুমায়ুন আহমেদ এর টেলিভিশন নাটক খুব দর্শকপ্রিয়। তার অন্যতম উপন্যাস হলো নন্দিত নরকে, জননীর গল্প, মাতাল হাওয়া এবং মধ্যাহ্ন জোসনা ইত্যাদি। তার নির্মিত জনপ্রিয় চলচ্চিত্রের মধ্যে দুই দুয়ারী, ঘেঁটুপুত্র কমলা, শ্রাবণ মেঘের দিন ইত্যাদি।

১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর ময়মনসিংহ জেলার অন্তর্গত নেত্রকোনা মহকুমার কেন্দুয়ার কুতুবপুরে জন্মগ্রহণ করেন কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ। তার পিতা শহীদ ফয়জুর রহমান আহমেদ এবং মাতা আয়েশা ফয়েজ। তার বাবা সাহিত্য অনুরাগী ছিলেন। পরিবারে সাহিত্য মনস্ক আবহাওয়া ছিল।

হুমায়ূন আহমেদের অনুজ মুহাম্মদ জাফর ইকবাল কথাসাহিত্যিক ও বিজ্ঞান শিক্ষক। তার ছোট ভাই আহসান হাবীব রম্যসাহিত্যিক এবং কার্টুনিস্ট। ছোটবেলায় হুমায়ুন আহমেদ এর নাম রাখা হয় শামসুর রহমান। ডাক নাম কাজল।

কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ বাবার চাকরীর সুত্রে দেশের বিভিন্ন স্কুলে লেখাপড়া করেন। তিনি বগুড়া জিলা স্কুল থেকে এসএসসি এবং ঢাকা থেকে ইন্টারমিডিয়েট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়ন শাস্ত্রে বিএসসি ও এমএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। এছাড়া তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ডাকোটা স্টেট ইউনিভারসিটি থেকে পলিমার রসায়নে পিএইচডি লাভ করেন।

১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রভাষক হিসেবে হুমায়ুন আহমেদ তার কর্মজীবন শুরু করেন। এই সময় তিনি বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী তোমাদের জন্য ভালবাসা রচনা করেন। এছাড়া তিনি ১৯৭৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদান করেন লেখালেখিতে ব্যস্ত হয়ে পড়ায় তিনি অধ্যাপনা ছেড়ে দেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রজীবনে নন্দিত নরকে উপন্যাস রচনার মধ্য দিয়ে হুমায়ুন আহমেদের সাহিত্য জীবনের শুরু। শঙ্খনীল কারাগার হুমায়ূন আহমেদের ২য় গ্রন্থ। কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ এর রচনার অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো গল্প - সমৃদ্ধি।

তিনি গল্প ও উপন্যাসে সংলাপ ও অতিবাস্তব ঘটনাবলির অবতারণা করেন যাকে একরূপ যাদু বাস্তবতা হিসেবে গণ্য করা যায়। তার পরিমিত বর্ননার মাধ্যম নেতিবাচক চরিত্রগুলো খুব সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলেন। হুমায়ূন আহমেদের অন্যতম শ্রেষ্ঠ রচনা হলো ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে রচিত মধ্যাহ্ন উপন্যাসটি। তবে হুমায়ুন আহমেদ সাধারণত সমসাময়িক ঘটনাবলি নিয়ে লিখে থাকেন।

পারিবারিক জীবনে দেখা যায় হুমায়ুন আহমেদ এর দুই জন স্ত্রী। তার প্রথম স্ত্রীর নাম গুলতেকিন আহমেদ। তাদের বিয়ে হয় ১৯৭৩ খ্রিস্টাব্দে। এই দম্পতির তিন মেয়ে ও এক ছেলে। এরপর ২০০৫ সালে তার বেশ কিছু নাটক এবং চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী শাওনকে বিয়ে করেন এবং প্রথম স্ত্রীর সাথে সম্পর্ক বিচ্ছেদ করেন। এই সংসারে তাদের দুই ছেলে।

ব্যক্তিজীবনে হুমায়ুন আহমেদ খুব সহজ সরল জীবন যাপন করতেন। জীবনের শেষভাগে ঢাকা শহরের অভিজাত আবাসিক এলাকা ধানমন্ডি ৩/ এ রোড়ে নির্মিত একটি ফ্লাটে বাস করতেন। তিনি খুব ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠতেন এবং ১১ টা অবধি লিখতেন। তবে জীবনের শেষ এক যুগে গাজীপুরে ৯০ বিঘা জমির ওপর স্থাপিত নুহাশ পল্লীতে থাকতে ভালোবাসতেন।

তিনি গল্প ও রসিকতা করতে খুব পছন্দ করতেন। তার সখ ছিল নীরবে মানুষের স্বভাব - প্রকৃতি ও আচার- আচরণ পর্যবেক্ষণ করা। তিনি সবসময় নিজেকে লেখালেখি ও চলচ্চিত্র নির্মাণের কাজে ব্যস্ত রাখতেন।

হুমায়ুন আহমেদ সফল চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে ও খ্যাতি লাভ করেন। টেলিভিশনে দর্শকপ্রিয় নাটক রচনার পর তিনি চলচ্চিত্র নির্মাণ শুরু করেন। হুমায়ূন আহমেদের প্রথম চলচ্চিত্র আগুনের পরশমণি। এরপর শ্রাবণ মেঘের দিন, চন্দ্রকথা, দুই দুয়ারী চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন।

১৯৭১ - এ বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রেক্ষাপট নিয়ে নির্মাণ করে শ্যামল ছায়া চলচ্চিত্রটি। তার সর্বশেষ ছবি ঘেটুপুত্র কমলা। এছাড়া তার উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত ছবি নন্দিত নরকে, সাজঘর, নিরন্তর ও বহুল আলোচিত চলচ্চিত্র দারুচিনি দ্বীপ। তার সব চলচ্চিত্রে তিনি নিজে গান রচনা করেন।

হুমায়ূন আহমেদ ১৯৮০ থেকে ১৯৯০ এর দশকে বাংলাদেশ টেলিভিশনের জন্য টেলিভিশন ধারাবাহিক ও টেলিফিল্ম রচনা শুরু করেন। তার প্রথম টিভি কাহিনীচিত্র প্রথম প্রহর বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারের মাধ্যমে তাকে বেশি জনপ্রিয় করে তোলে।

তার অন্যতম টিভি ধারাবাহিক নাটকগুলো হলো বহুব্রীহি, অয়োময়, এই সব দিন রাত্রি, নিমফুল,আজ রবিবার, কোথাও কেউ নেই,আমরা তিন জন। এছাড়া এক পর্বের নাটকের মধ্যে খাদক, অচিন বৃক্ষ, অন্যভুবন উল্লেখযোগ্য।

কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ এর নির্বাচিত উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে - আমার আছে জল,শঙ্খনীল কারাগার, নন্দিত নরকে, এই সব রাত্রি, কৃষ্ণপক্ষ, কোথাও কেউ নেই, বহুব্রীহি, ইস্টিশন, অচিনপুর, বাসর, কুটুমিয়া, একজন মায়াবতী, শ্রাবণ মেঘের দিন ও পেন্সিলে আঁকাপরী উল্লেখযোগ্য। এছাড়া তার মুক্তিযুদ্ধ ও রাজনৈতিক উপন্যাসের মধ্যে আগুনের পরশমণি, শ্যামল ছায়া, অনিল বাগচীর একদিন জনপ্রিয়।

হুমায়ুন আহমেদ এর জনপ্রিয় হিমু সংক্রান্ত উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে - হিমু, দরজার ওপাশে, ময়রাক্ষী এবং হিমু, পারাবার, হিমু মামা, হিমুর রুপালি রাত্রি, হিমুর হাতে কয়েকটি নীল পদ্ম , আঙ্গুল কাটা জগলু, হিমু রিমান্ডে ইত্যাদি।

কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের বহুল আলোচিত মিসির সংক্রান্ত উপন্যাসের মধ্যে নিশিথিনী,দেবী, নিষাদ, অন্যভুবন, বৃহন্নলা,আমিই মিসির আলী, তন্দ্রাবিলাস, মিসির আলির অমিমাংসিত রহস্য, হরতন ইশকাপন ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

হুমায়ুন আহমেদ এর উল্লেখযোগ্য শুভ্র সংক্রান্ত উপন্যাসের মধ্যে রুপালী, দ্বীপ, শুভ্র, দারুচিনি দ্বীপ ইত্যাদি। এছাড়া তার বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী - শূন্য, ইমা, নি আর আত্নজীবনী - বলপয়েন্ট, রং পেনসিল, ফাউন্টেইন পেন, হোটেল গ্রেভার ইন ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

এছাড়া তার বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী - শূন্য, ইমা, নি আর আত্নজীবনী - বলপয়েন্ট, রং পেনসিল, ফাউন্টেইন পেন, হোটেল গ্রেভার ইন ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ তার অসংখ্য বহুমাত্রিক সৃষ্টির জন্য বাংলা একাডেমী, শিশু একাডেমী, একুশে পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কারসহ আরো অনেক পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছেন।

মলাশয়ের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘ নয় মাস চিকিৎসাধীন থাকার পর ২০১২ সালের ১৯ জুলাই নিউইয়র্কের বেলেভ্যু এই নন্দিত লেখক মৃত্যুবরণ করেন। বাংলাদেশের মানুষের অজস্র শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় শেষ বিদায় জানিয়ে তাকে নুহাশ পল্লীর লিচু তলে দাফন করা হয়। হুমায়ুন আহমেদ মরে গিয়েও তার অসংখ্য প্রেমের গল্প, কবিতা, প্রেমের উপন্যাস ইত্যাদি দিয়ে জাতির অন্তরে চিরদিন বেঁচে থাকবেন।

আসমা আক্তার শান্তা-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

* জনসংখ্যা সমস্যা নয় সম্পদ তথা উন্নয়নের উৎস

* জীবনানন্দ দাসের সকল কবিতা, গল্প, রচনাবলী এবং জীবনী

* বাংলাদেশের মানুষের শীতকালীন জীবন-যাত্রা । শীতের সকাল

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আরও প্রবন্ধ পড়ুন



বিজ্ঞাপন



© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com