জেনে নিন মাটন বা গরুর মাংসের কাচ্চি বিরিয়ানি রান্নার রেসিপি

আসমা আক্তার শান্তা
প্রকাশকাল (২৭ মার্চ ২০১৭)

f
g+
t

বিরিয়ানি যেকোনো মানুষের সবচেয়ে প্রিয় খাবারের মধ্যে একটি। বিরিয়ানি হলেই অনেকে স্বাভাবিক খাবারের চেয়ে একটু বেশি খেয়ে থাকে। আমরা মাটন বা গরুর মাংসের কাচ্চি বিরিয়ানি সাধারণত কোন উৎসব বা অনুষ্টানে অথবা রেস্টুরেন্টে খেয়ে থাকি। কারণ আমরা অনেকেই বাড়িতে মাটন বা গরুর মাংসের কাচ্চি বিরিয়ানি রান্না করতে পারি না। এবার জেনে নিন সহজে বাড়িতে বসে মাটন বা গরুর মাংসের কাচ্চি বিরিয়ানি তৈরির রেসিপি।

জেনে নিন মাটন বা গরুর মাংসের কাচ্চি বিরিয়ানি রান্নার রেসিপি

ছবি আসমা আক্তার শান্তা

ক্যারামেল পুডিং বানানোর সহজ রেসিপি | পুডিং তৈরির পদ্ধতি

জেনে নিন রান্নাঘর ডিজাইন সম্পর্কিত আধুনিক রান্নাঘরের সরঞ্জাম

বিরিয়ানি রান্নার উপকরণ

১) গরুর মাংস বা মটন
২) আতপ চাল
৩) ঘি
৪) পেঁয়াজ বাটা
৫) আদা বাটা
৬) রসুন বাটা
৭) পেঁয়াজ কুচি
৮) কাঁচা মরিচ কুচি
৯) লবণ
১০) তেজপাতা
১১) টক দই
১২) জাফরান
১৩) দুধ
১৪) গরম মসলা

প্রস্তুত প্রণালী

বিরিয়ানির জন্য যতটা মাংস নিবেন তার অর্ধেক আতপ চাল নিতে হবে। এরপর মাংস ডুমো করে কেটে ধুয়ে আদা বাটা, রসুন বাটা, পেঁয়াজ বাটা, দই ও লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ মেখে রাখতে হবে। এবার দুধে জাফরান বা কোনো রঙ গুলে নিবেন।

তারপর আতপ চাল ভাল করে ধুয়ে আধা সিদ্ধ করে মাড় ঝরিয়ে একটা পাত্রে ছড়িয়ে রাখতে হবে। এরপর হাড়িতে ঘি দিয়ে পেঁয়াজ কুচি বাদামী রং করে ভেজে তুলতে হবে। ঐ ঘিয়ে মসলামাখা মাংস ছেড়ে নাড়তে হবে।

মাংস হতে পানি বের হওয়ার পর ঐ পানি শুকিয়ে গেলে আবার পানি দিতে হবে। মাংস সিদ্ধ হয়ে গেলে হাড়ি নামিয়ে রাখবেন। এবার খানিকটা ঘি, লবণ, কাঁচা মরিচ কুচি, আস্ত গরম মসলা ও দুধে ভেজান জাফরান গোলা দিয়ে আধা সিদ্ধ ভাত মেখে রাখবেন।

এবার অন্য হাড়িতে তেজপাতা সাজিয়ে সিদ্ধ মাংস এবং মসলামাখা ভাত দিয়ে হালকা পানি ছিটিয়ে দিন। সবশেষে বিরিয়ানির উপর ভাজা পেয়াজ ছড়িয়ে দিয়ে হাড়ির মুখশক্ত করে ঢেকে রাখুন। এভাবে রান্না হয়ে গেল মাংসের বিরিয়ানি।

মোটকথা, বিরিয়ানি আমরা যেকোনো ছোট খাট ঘরোয়া অনুষ্টানে করে সবাইকে খাওয়াতে পারি। যেমন জন্মদিন, বিবাহ বার্ষিকী, নাম রাখার অনুষ্টান ইত্যাদি। এসব অনুষ্টানে সাদা ভাতের সাথে অনেক গুলো তরকারি রান্না করতে হয়।

কিন্তু বিরিয়ানি হলে একটু সালাদ করে দিলেই হয়ে যায়। আর কোনো ঝামেলা করতে হয় না। অন্যদিকে সবাইকে সন্তুষ্ট করে খাওয়ানো যায়। কারন সাদা ভাত আমরা বাঙ্গালিরা প্রতিদিন খেয়ে থাকি। তাই অনুষ্টানে একটু অন্যরকম হলে ভালোই হয়। তাই খুব সহজে বিরিয়ানি রান্না শিখুন এবং পরিবারে একটি সুন্দর ডিনার বা লাঞ্চ উপহার দিন।

আসমা আক্তার শান্তা-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

* সৌন্দর্য বৃদ্ধি এবং সৌন্দর্য বজায় রাখার উপায়

* বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে খেলাধুলার গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা

* মাইকেল মধুসূদন দত্ত এবং বাংলা সাহিত্যে তার অবদান

বিজ্ঞাপন

আরও প্রবন্ধ পড়ুন






© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com