তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যবহার ও মানবজীবনে এর প্রভাব

আসমা আক্তার শান্তা
প্রকাশকাল (০৩ এপ্রিল ২০১৭)

f
g+
t

তথ্যের তৈরি, সংরক্ষণ, বিনিময়, যোগাযোগ, পুনরুদ্ধার ইত্যাদির জন্য যে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহৃত হয় তাকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বলে। তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার আমাদের জীবন মানকে উন্নত করেছে। আমাদের জীবন যাত্রাকে দ্রুত ও আরামদায়ক করেছে। এজন্য আমাদের জীবনে তথ্যের গুরুত্ব অনেক। আমাদের ব্যক্তিগত, সামাজিক ও রাষ্টীয় জীবনে তথ্য বিনিময়ের মাধ্যমে আমরা নিরাপদ থাকতে, ভালোভাবে বাচতে এবং বিপদ থেকে রক্ষা পেতে পারি। কম্পিউটার, ইন্টারনেট, টেলিভিশন, রেডিও, ইমেইল, মোবাইল ফোন ইত্যাদি হলো আইসিটি। বর্তমানে আইসিটি ব্যবহার করে সহজেই তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ, বিস্তার ও বিনিময় করা যায়।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যবহার ও মানবজীবনে এর প্রভাব

ছবি আসমা আক্তার শান্তা

আমাদের জীবনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির নানা মুখী ব্যবহার

তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিনিময়

তথ্য সংগ্রহ

আমরা সাধারণত বই, খবরের কাগজ, টেলিভিশন এবং রেডিওর মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করে থাকি। কিন্তু বর্তমানে ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করা অনেক সহজ। কারন ইন্টারনেট হচ্ছে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের কম্পিউটারগুলোকে সংযুক্তকারী বিশাল নেটওয়ার্ক। আমরা আমাদের প্রয়োজনীয় তথ্যটি কম্পিউটার বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করে সহজেই পেতে পারি।

তবে ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের জন্য প্রথম কাজ হলো প্রয়োজনীয় তথ্য অনুসন্ধান। ইন্টারনেটে তথ্য সংগ্রহের জন্য সার্চ ইঞ্জিন যেমন - গুগল, ইয়াহু, বিং ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারি। এরপর যা ইচ্ছা তা সার্চ করে প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করে উপকৃত হতে পারি।

তথ্য সংরক্ষণ

ইন্টারনেটে তথ্যটি অনুসন্ধানের পর প্রাপ্ত তথ্য খাতায় লিখে, ছবি তুলে, ভিডিও রেকর্ড করে সংরক্ষণ করতে পারি। বর্তমানে তথ্য সংরক্ষণের জন্য আমরা তথ্য সংরক্ষণ বিভিন্ন প্রযুক্তি যেমন - পেন ড্রাইভ, সিডি, ডিভিডি, মেমোরি কার্ড ইত্যাদি ব্যবহার করি।

তাছাড়া অনলাইনেও ডাটা সংরক্ষণ করা যায় যেখান থেকে তথ্য পাওয়া সবচেয়ে সহজ। এতে করে আমরা খুব সহজে সংরক্ষিত তথ্য আমাদের প্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহার করে উপকৃত হই।

তথ্য বিনিময়

তথ্য বিনিময়ের জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সবচেয়ে কার্যকরী মাধ্যম হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। টেলিফোন বা মোবাইল ফোন ব্যবহার করে আমরা সহজে মানুষের সাথে যেকোনো মুহূর্তে কথা বলতে পারি।

যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ জিনিসের ছবি তুলে বা ভিডিও করে সহজে অন্যজনের কাছে পাঠাতে পারি। বর্তমানে ক্ষুদে বার্তা (এসএমএস) , ইমেইল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন - ফেসবুক, টুইটার, ইমো ব্যবহার করে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ও তথ্য আদান প্রদান করতে পারি।

মানবজীবনে তথ্য প্রযুক্তির প্রভাব

তথ্য প্রযুক্তির সুবিধা


১) তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে আমরা পারিবারিক ভাবে যেকোনো কাজ সুন্দর ভাবে সম্পন্ন করতে পারি।

২) এর মাধ্যমে কর্মক্ষেত্রে ঊর্ধ্বতন কর্তৃক যেকোনো আদেশ সহজে অধস্তনদের পাঠাতে পারি। কিছুদিন আগেও যে কাজটার আদেশ আসতে আসতে কাজের গুরুত্ব শেষ হয়ে যেত।

৩) আধুনিক তথ্য ব্যবস্থার কারণে আমরা ঘরে বসে ব্যবসা সংক্রান্ত যেকোনো কাজ সহজে করে ফেলতে পারি। এখন আর নির্দিষ্ট জায়গায় গিয়ে ব্যবসা সংক্রান্ত চুক্তি করার প্রয়োজন পড়ে না।

৪) আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সুবাদে এখন আমরা ঘরে বসে অনলাইনে কাচা বাজার থেকে শুরু করে জামাকাপড়, জুয়েলারি সবকিছু কিনতে পারি। এর জন্য শুধু অনলাইনে কেনাকাটা করার সাইটগুলোতে জিনিস দেখে অর্ডার করার স্বল্প সময়ের মধ্যেই হোম ডেলিভারি পাওয়া যায়।

৫) উন্নত তথ্য প্রযুক্তির সুবাদে আমরা অনলাইনে আউটসোর্সিং করে অনেক বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারি। এতে আমাদের জাতীয় অর্থনীতি শক্তিশালী হচ্ছে। যুবসমাজের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে এবং বেকারত্ব হ্রাস পাচ্ছে।

তথ্য প্রযুক্তির অসুবিধা

তথ্য প্রযুক্তির অনেক গুলো সুবিধা থাকলে ও এর অসুবিধা কম নয়। যেমন:

১) বর্তমানে আইসিটির কারণে তথ্য আদানপ্রদান এত বেশি সহজ হয়ে গেছে যে আমরা আমাদের যেকোনো মুহূর্তের ছবি তুলে অন্যকে পাঠাতে পারি। এতে করে এক শ্রেণির মানুষ এই ছবিগুলো বিকৃত করে মুক্তিপণ আদায় থেকে আরো অনেক অসৎ কাজ সম্পাদন করে। এতে করে আমরা হয়রানির শিকার হচ্ছি। আমাদের সামাজিক মর্যাদা হ্রাস পাচ্ছে।

২) ইদানীং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপ ইত্যাদির প্রতি সবার আকর্ষণ এতো বেশি যে শিক্ষার্থীরা পড়াশুনা করছে না, কর্মক্ষেত্রে ও সবার এটার দিকে মনোযোগ থাকে। তাছাড়া মানুষ বিভিন্ন অনৈতিক কাজে জড়িয়ে পড়ছে, প্রতারণার শিকার হচ্ছে। সবশেষে অনাকাঙ্ক্ষিত বিভিন্ন দূর্ঘটনা ঘটছে।

৩) উন্নত মোবাইল প্রযুক্তির কারণে মানুষ যেকোনো মুহূর্তের স্মৃতি রাখার জন্য সেলফি তুলতে গিয়ে প্রাণ পর্যন্ত হারাচ্ছে।

৪) উন্নত তথ্য প্রযুক্তির কারণে মানুষ নৈতিক শিক্ষার দিকে না ঝুকে অনৈতিক, উৎশৃঙ্খল জীবন যাপনে অভ্যস্ত হয়ে উঠছে। কারন যেকেউ ভাল জিনিস সহজে গ্রহণ করতে পারে না, কিন্তু খারাপ জিনিসের প্রতি সহজে আকৃষ্ট হয়ে যায়।

মোটকথা, তথ্য প্রযুক্তি আমাদের জীবন যাত্রা সহজ করেছে। যেমন আমাদের গৃহস্থালি কাজ থেকে শুরু করে ব্যাংকিং সাইট, অফিস, বাজার, যাতায়াতের টিকেট সবকিছু আমরা ঘরে বসে অনলাইনে করে ফেলছি। তাই প্রযুক্তির খারাপ দিকগুলোর কথা মাথায় না রেখে ভাল দিকগুলো আমাদের জীবন মান উন্নয়নে কাজে লাগাতে হবে।

তার জন্য সবাইকে শুধু একটু প্রযুক্তি ব্যবহারে সর্তক ও সচেতন হতে হবে। আমরা সবাই জানি সবকিছুর ভাল দিকও আছে, খারাপ দিকও আছে। তাই ভাল দিকগুলোর দিকে নজর দিয়ে নিজে এগিয়ে যাব এবং দেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে গড়তে এবং দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ করতে সাহায্য করব।

আসমা আক্তার শান্তা-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

তৈরি করে নিন মজার খাবার - ছোলার ডালের কচুরি রেসিপি

স্বাস্থ্যকর ভেজিটেবল বিরিয়ানি রান্নার সহজ রেসিপি

ক্যারামেল পুডিং বানানোর সহজ রেসিপি | পুডিং তৈরির পদ্ধতি

বিজ্ঞাপন

আরও প্রবন্ধ পড়ুন






© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com